শিরোনাম
সোমবার  ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং  |  ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  |  ১৯শে সফর, ১৪৪৩ হিজরী

৬০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার, ট্রাক মালিকসহ তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা

টাঙ্গাইলের এক ট্রাক মালিকের বিরুদ্ধে কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে নানা পণ্যের ভাড়া নিয়ে ফিরতি পথে ইয়াবার চালান নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এমন ঘটনায় টাঙ্গাইলের কালিহাতির সরলা গ্রামের মোহাব্বত হোসেনের ছেলে ট্রাক মালিক মো. হাফিজুর রহমান (৩৫)সহ তিনজনের বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় মামলা রুজু হয়েছে।

বিজিবির হাতে আটক হয়েছে ইয়াবা বহনকারি হাফিজুরের ট্রাকসহ চালক ও দু’জন হেলপার। আটক হওয়া ট্রাকচালক ও হেলপারদ্বয় বিজিবির কাছে অকপটে স্বীকার করেছেন, ট্রাক মালিকের নির্দেশেই সর্বশেষ ৬০ হাজার ইয়াবার চালান টেকনাফ থেকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল টাঙ্গাইলে। টেকনাফ সীমান্তে কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের দমদমিয়া বিজিবি চেক পোস্টে আজ শুক্রবার বিজিবি সদস্যদের হাতে ধরা পড়ে ৬০ হাজার ইয়াবার চালানসহ ট্রাকটি।

টেকনাফের বিজিবি-২ ব্যাটালিয়ানের অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. ফয়সাল হাসান খান জানিয়েছেন, গোপন সূত্রের সংবাদ ছিল টাঙ্গাইল থেকে টেকনাফে পণ্য নিয়ে আসা একটি ট্রাক ফিরতি পথে ইয়াবার চালান নিয়ে যাচ্ছে। এমন সংবাদ পেয়ে বিজিবি সদস্যরা দমদমিয়া চেক পোস্টে সতর্ক অবস্থান নেয়।

যথারীতি ট্রাকটি টেকনাফ থেকে উক্ত চেকপোস্টে এসে পৌঁছলে বিজিবি সদস্যরা তাতে তল্লাশি শুরু করে। কিন্তু ট্রাকের চালক ও হেলপার কিছুতেই স্বীকার করে না তাদের ট্রাকে ইয়াবার চালান থাকার কথা। শেষ পর্যন্ত বিজিবির প্রশিক্ষিত কুকুর আনা হয়। কুকুর দিয়ে বিশেষ কায়দায় তল্লাশির পর ট্রাকের এয়ার ক্লিনার ফিল্টারের ভেতর বিশেষভাবে কালো ট্যাপ দিয়ে লুকিয়ে রাখা ৬০ হাজার পিস ইয়াবার চালান উদ্ধার করা হয়। এ পরিমাণ ইয়াবার মূল্য আনুমানিক ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা।

বিজিবি তাৎক্ষণিক ট্রাকের চালক ও হেলপারকে আটক করে। আটক ট্রাকচালক হচ্ছেন- টাঙ্গাইলের কারিহাতির সরলা গ্রামের মৃত আবদুল আজিজের ছেলে মো. লেবু মিয়া (২৫) ও হেলপার হচ্ছেন কালিহাতির গোহালিয়া বাড়ি গ্রামের মো. ছানোয়ার হোসেনের ছেলে মো. ইসমাইল হোসেন (৩৪)।

আটক হওয়ার পরই চালক এবং হেলপার বিজিবিকে বিস্তারিত ঘটনার কথা স্বীকার করেন। তারা দুজন জানান, ট্রাক মালিক হাফিজুর প্রায়শ টেকনাফে তার গাড়িটি নানা পণ্যের ভাড়া নিয়ে পাঠিয়ে থাকেন। টেকনাফে ট্রাকটি আসার পর ফিরতি পথে এভাবে ইয়াবার চালান নিয়ে যায়। বিজিবি ট্রাক মালিক হাফিজুরকে পলাতক আসামি দেখিয়ে চালক ও হেলপারসহ তিনজনকে আসামি করে টেকনাফ থানায় মামলা দায়ের করেছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের মরিচ্যা বিজিবি চেক পোস্টে বিজিবি সদস্যরা বগুড়ার এরকম বেশ কয়েকটি ইয়াবা বহনকারী ট্রাক আটকিয়ে ট্রাক মালিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। বগুড়া থেকে ট্রাকে করে রোহিঙ্গা শিবিরে চাল-ডাল এনে ফিরতি পথে ইয়াবার চালান নিয়ে যাওয়া হতো ওই সব ট্রাকে।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com