সোমবার  ১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং  |  ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ  |  ২০শে রবিউল-আউয়াল, ১৪৪১ হিজরী

সিএমএইচে সৈয়দ আশরাফের মরদেহ

আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ)। শনিবার রাতে তার মরদেহ হিমঘরে রাখার জন্য সিএমএইচে আনা হয়। এর আগে, সন্ধ্যা ৭টার দিকে বেইলি রোডের বাসায় পৌঁছায় তার মরদেহবাহী অ্যাম্বুলেন্স।

সন্ধ্যা ৬টায় শাহজালাল বিমানবন্দরে অবতরণ করে সৈয়দ আশরাফের মরদেহ বহনকারী বিমানটি।

রবিবার দুপুর ১২টায় কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। পরে বিকাল সাড়ে ৪টায় বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে। তার রাজনৈতিক সহযোদ্ধারা বলছেন, নির্মোহ ও পরিচ্ছন্ন ব্যক্তিত্বের অধিকারী সৈয়দ আশরাফ দলের দুর্দিনে ঢাল হয়ে আগলে রেখেছিলেন।

সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে যিনি সবার কাছে, সব রাজনৈতিক দলের কাছে সমাদৃত। কথা ছিলো সুস্থ হয়ে দেশে ফিরে আবারো সংসদ-সদস্য হিসেবে শপথ নিবেন। কিন্তু বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় ফুসফুসের ক্যান্সারে ব্যাংককের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৬৮ বছরে মারা যান তিনি।

জাতীয় চার নেতার একজন সৈয়দ নজরুল ইসলামের ছেলে ৫ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফ ছিলেন নির্মোহ, মৃদুভাষী, সুদক্ষ এবং পরিচ্ছন্ন একজন রাজনীতিবিদ। রাজনীতির মাঠে কাঁদা ছোড়াছুড়ি হলেও নিজেকে রেখেছিলেন পর্দার অন্তরালে।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com