রবিবার  ২৪শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং  |  ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  |  ১০ই জমাদিউস-সানি, ১৪৪২ হিজরী

সারাদেশে ‘বনখেকো’ ৮৮ হাজার জন, অভিযানে মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন

দেশে সংরক্ষিত বনভূমির এক লাখ ৩৮ হাজার ৬১৩ একর বেদখল হয়ে গেছে। ৮৮ হাজার ২১৫ ব্যক্তি এসব জমি দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রেখেছেন। গড়ে তুলেছেন শিল্প কারখানা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, রিসোর্ট, খামার ইত্যাদি। এসব অবৈধ দখল উচ্ছেদ করার জন্য বিশেষ অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়।

সোমবার সচিবালয়ে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের এক বিশেষ সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। পর্যায়ক্রমে গাজীপুর, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, কক্সবাজার বনবিভাগের সংরক্ষিত বনের ভূমি উদ্ধারে অভিযান চালানো হবে। এরপর অভিযান চালানো হবে দেশের অন্যান্য এলাকায়।

মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার, সচিব জিয়াউল হাসান এনডিসি এবং মন্ত্রণালয় ও বন অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জানানো হয়, বেশি বনভূমি অবৈধ দখলে আছে এমন ১২টি জেলার জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে পরিচালিত এ বিশেষ অভিযান মনিটরিং ও সমন্বয় করার জন্য পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব ও উপসচিব পদমর্যাদার কর্মকর্তাদের দায়িত্ব দেওয়া হবে।

সভায় আরও জানানো হয়, ১৪০ জন জবরদখলকারী ৮২০ দশমিক ৩৪ একর সংরক্ষিত বনভূমি দখল করে শিল্প প্রতিষ্ঠান এবং কলকারখানা স্থাপন করেছে। ৫ হাজার ৯৮২ জন জবরদখলকারী ১৪ হাজার ১৪৯ দশমিক ১৭ একর সংরক্ষিত বনভূমি জবরদখল করে হাটবাজার, দোকান, রিসোর্ট বা কটেজ, কৃষি ফার্ম ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপন করেছে। ৮২ হাজার ৯৩ জন ব্যক্তি ১ লাখ ২৩ হাজার ৬৪৩ দশমিক ৫৫ একর সংরক্ষিত বনভূমি অবৈধ দখল করে ঘরবাড়ি, কৃষিজমি তৈরি করেছে।

সারাদেশে বনভূমির পরিমাণ ৩৩ লাখ ১০ হাজার ৯০৭ একর। সভার সিদ্ধান্ত হয়েছে, রেকর্ড করা সব সংরক্ষিত বনভূমি উদ্ধারে এ কর্মসূচি চলমান থাকবে।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com