বুধবার  ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং  |  ৩রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ  |  ১৭ই মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী

সাইলেন্ট হার্ট অ্যাটাক এড়াতে হলে যা করতে হবে

হার্ট অ্যাটাকের খুব স্বাভাবিক একটি উপসর্গ বুতে ব্যথা ও চাপ অনুভব। কিন্তু সব ধরনের হার্ট অ্যাটাকে মোটেও ব্যথা হয় না। খুব একটা চাপও লাগে না। সামান্য কিছু অস্বস্তিতেই ভিতরে ভিতরে বড়সড় ক্ষতি হয়ে যায়। মূলত এই প্রকারের অ্যাটাকের উপসর্গ একটু একটু করে দীর্ঘ সময় ধরে চলে। ‘দ্য ন্যাশনাল হার্ট, লাং অ্যান্ড ব্লাড ইনস্টিটিউট’-এর মতে, বিশ্বে যত মানুষের হার্ট অ্যাটাক হয়, তার ৪০ শতাংশর ক্ষেত্রেই সাইলেন্ট হার্ট অ্যাটাকের শিকার।

সাইলেন্ট হার্ট অ্যাটাক এড়াতে হলে যা করতে হবে, তা হলো- ১.  হাত, ঘাড় ও দুই কাঁধের মধ্যে চিনচিনে ব্যথা হলে তা নিয়ে  অবহেলা করা যাবে না। কারণ এই ব্যথা বুক থেকে ছড়িয়ে পড়ে হাতে। ২. কোলেস্টেরল ও ওবেসিটি থাকলে সচেতন থাকতে হবে এবং প্রতি তিন মাস অন্তর লিপিড-প্রোফাইল পরীক্ষা করাতে হবে। ৩. নিয়মিত শরীরচর্চা ও হাঁটাহাঁটি বজায় রাখুন। ৪.ডায়েটে বাদ দিন তেল-মশলার আধিক্য। যোগ করুন সবুজ শাকসব্জি ও ফল।

এ ব্যাপারে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবব্রত রায়ের মতে, ‘‘সাধারণত, পুরুষের তুলনায় মেয়েরা এই রোগের শিকার হন বেশি। অনেক সময়ই সচেতনতার অভাবে কোনও হালকা বুকের ব্যথাকে গ্যাসের ব্যথা বলে ভুল ভাবনা নিয়ে বসে থাকেন। সচেতনতার অভাবেই এই সব অসুখ ক্ষতি করে। কারও ক্ষেত্রে হার্ট থেকে ব্যথা নিয়ে যাওয়ার যে স্নায়ু তা ভোঁতা হয়ে যায়। ডায়াবেটিক নিউরোপ্যাথির কারণেও এমনটা হতে পারে। কারও আবার ব্যথা সহ্য করার ক্ষমতা বেশি। কারণ তাঁদের শরীরে এন্ডরফিনের ক্ষরণ বেশি। আবার আর্টারি পুরো বন্ধ হয়ে গিয়ে নিজে থেকে খোলে পরে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয় হার্টের মাসল। পরে শ্বাসকষ্ট হলে ইসিজি, ইকো বা টিএমটি করলে তা বোঝা যায়।’’

একটি প্রতি উত্তর ট্যাগ

আপনার ইমেল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত *

*

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com