বুধবার  ২৬শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং  |  ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  |  ২২শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪৩ হিজরী

যুক্তরাষ্ট্রে নায়িকা, গুঞ্জন দেশে

কিছুদিন আগেই যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন চিত্রনায়িকা অধরা খান। আর এ নিয়েই শোরগোল শুরু হয়েছে দেশীয় শোবিজ অঙ্গনে। সম্প্রতি ঢাকাই চলচ্চিত্রের বেশ কয়েকজন অভিনয়শিল্পী যুক্তরাষ্ট্রে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন, আবার চলেও এসেছেন।

তাঁদের মধ্যে রয়েছেন শাকিব খান, শবনম ইয়াসমিন বুবলী, বাপ্পী চৌধুরী, অধরা খান। এ ছাড়াও আরো অনেকেই যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছিলেন। তবে সকলেই ফিরে এসেছেন। সর্বশেষ যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে উড়াল দেন অধরা খান।

অধরা কেন যুক্তরাষ্ট্রে? এমন প্রশ্ন ঢাকাই ফিল্ম পাড়ায় ছড়াতে থাকে।  শুধু কারণ খুঁজতে গিয়েই আলোচনা-সমালোচনার পর্ব শেষ হচ্ছে না, অনেকে শাকিব খান ও অধরা খানের অবস্থান নিয়ে দুইয়ে দুইয়ে চার মেলাতে শুরু করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী নির্মাতা হিমেল আশরাফ সম্প্রতি নিউ ইয়র্কে এক অনুষ্ঠানে জানান, শাকিব খানকে নিয়েই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলচ্চিত্রের শুটিং শুরু করবেন।

যদি অনুমতি নিয়ে শুটিং শুরু করেন হিমেল আশরাফ তাহলে শাকিবের নায়িকা কে হবেন? বাংলাদেশি নায়িকা দরকার হলে নিশ্চয়ই ভিসা জটিলতায় যেতে চাইবেন না নির্মাতা। এ জন্যই খুব সহজেই হিমেল আশরাফ অধরাকেই বেছে নেবেন।

এ বিষয়ে অধরার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। এই মুহূর্তে নায়িকা লাস ভেগাসে অবস্থান করছেন। সেখান থেকে শাকিব খানের সঙ্গে অভিনয়ের সম্ভাব্যতা উড়িয়ে দেন। বলেন, ‘এ বিষয় অপ্রাসঙ্গিক, কোনো প্রসঙ্গ এলে আমি নিজেই জানাব।’

যুক্তরাষ্ট্রে কেন গেছেন—এই প্রশ্নের জবাবে জানালেন, ‘বেড়াতে। একদম বেড়াতে। আমি যে ভ্রমণপ্রিয় এটা আসলে সকলেই জানে। অন্তত যারা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করে।’

নিউ ইয়র্ক থেকে ১ জানুয়ারি লাস ভেগাসে এসেছেন জানিয়ে বলেন, ‘আমি একটা মাসখানেকের টুর প্ল্যান করেছি। ২৩ ডিসেম্বর থেকে নিউ ইয়র্কে ছিলাম। লাস ভেগাস ও গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন পর্ব শেষ করব ৫ জানুয়ারি। এরপর লস অ্যাঞ্জেলেসে যাব। ৮ জানুয়ারি যাব মেক্সিকো, এরপর ১২ জানুয়ারি যাব সানফ্রান্সিসকো। এই  ভ্রমণ শেষ হলে দেশে ফিরব।’

এ ছাড়াও ৫ জানুয়ারি করোনা ভ্যাকসিনের বুস্টার ডোজ নেবেন লাস ভেগাস থেকেই—এমনটাই জানালেন এই অভিনয়শিল্পী।

সম্প্রতি কলকাতার একটি চলচ্চিত্রের কাজ শেষ করলেন, যার শুটিং হয়েছে মালদ্বীপ ও ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে। অধরা নিজের  অভিনীত ‘নায়ক’, ‘মাতাল’ ও ‘পাগলের মতো ভালোবাসি’ সিনেমাগুলো দিয়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন।  মুক্তি পাওয়া এসব সিনেমায় নিজের পারফরম্যান্সের কারণে এই করোনাকালেও বেশ কয়েকটি সিনেমায় কাজ করেছেন তিনি। গত বছর করোনার প্রথম দিকে তিনি কাজ শুরু করেন সৈয়দ অহিদুজ্জামান ডায়মন্ড পরিচালিত ‘কোভিড নাইনটিন ইন বাংলাদেশ’ সিনেমার।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com