বৃহস্পতিবার  ২৮শে মে, ২০২০ ইং  |  ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  |  ৪ঠা শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী

ভারতের বর্তমান পরিস্থিতি যেন সিনেমা

দেশের বর্তমান পরিস্থিতি যেন সিনেমা। ২০২০-বাজেট দেশের অর্থনীতির কোনও উন্নতি ঘটাবে না।’ শনিবার বাজেট নিয়ে নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে এভাবেই ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তৃণমূলের সাংসদ অভিনেত্রী।

নুসরাতের কথায়, এই বাজেটে অর্থনীতি ও কর্মসংস্থানের কোনও উন্নতি তো হবেই না, এমনকি এই বাজেটে কৃষকদের স্বার্থও উপেক্ষিত। রেল, বিএসএনএল, এয়ার ইন্ডিয়া-র পর এলআইসি-কে বেসরকারিকরণের পথে কেন্দ্র যেভাবে হাঁটছে এদিন সেবিষয়েও ক্ষোভ উগরে দেন নুসরাত। যদিও এদিন বাজেট পেশের সময় সংসদে উপস্থিত ছিলেন না নুসরত জাহান। তবে সংসদে ছিলেন তৃণমূলের আরও এক সাংসদ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী।

শনিবার সংসদে গিয়ে রাজনৈতিক বিবাদ ভুলে কংগ্রেস সাংসদ ও সুপ্রিয়া সুলে ও বিজেপি সাংসদ কিরণ খেরের সঙ্গে সেলফি তোলেন মিমি চক্রবর্তী। সেই সেলফি নিজের ইনস্টা হ্য়ান্ডেলে পোস্টও করেন তিনি।

এদিকে শনিবার বাজেট নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে সমালোচনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও বাজেট নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তৃণমূলের অন্যান্য নেতা ও মন্ত্রীরাও। তৃণমূলের জাতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও’ব্রায়েন টুইটারে প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন, দেশের অর্থনীতিকে খাদের কিনারায় ঠেলে দিল বাজেট। আইসিউ থেকে অর্থনীতি চলে গেল ভেন্টিলেটরে। কর্মসংস্থান নিয়ে কোনও কথা নেই। উল্লেখ নেই গরিবদের কথা। রেল, বিএসএনএল, এয়ার ইন্ডিয়া, এখন এলআইসিকে বেচে দেওয়া হল। কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করার কথা বলা হয়েছে।

কিন্তু কীভাবে সম্ভব? আয়করে ১০০টার মধ্যে ৭০টা ছাড় তো তুলে দেওয়া হয়েছে। মহিলা উন্নতিতে মাত্র ৬৪৪ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। ৫০ শতাংশ ব্যয় করা হয়েছে বিজ্ঞাপনে।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com