রবিবার  ২৫শে আগস্ট, ২০১৯ ইং  |  ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ  |  ২২শে জিলহজ্জ, ১৪৪০ হিজরী

ব্যাটিংয়ের ভুলেই সর্বনাশের শুরু

কেন উইলিয়ামসনের রান আউটের সুযোগ মিস করা মুশফিকুর রহিম এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আক্রান্ত। বিশেষজ্ঞরাও সমালোচনা করছেন। তবে তাঁর ওই ভুলটিই কি নিউজিল্যান্ডের কাছে ২ উইকেটে হারের একমাত্র কারণ? অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা কিন্ত অন্য কথা বলেছেন।

অবশ্য তাঁর দৃষ্টিতে ম্যাচের টার্নিং পয়েন্টেও মুশফিকের নাম রয়েছে। সাকিব আল হাসানের সঙ্গে যখন বড় জুটি গড়ার ইঙ্গিত দিচ্ছিলেন, তখনই হঠকারী একটি সিঙ্গেল নিতে গিয়ে রান আউট হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আগের ম্যাচে সর্বোচ্চ রান করা মুশফিক। হারের কারণ ব্যাখ্যায় এটাকেই এক নম্বরে রেখেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক, ‘সাকিব আর মুশফিকের জুটি ভেঙ্গেছে রান আউটের মাধ্যমে। ওই রান আউটটাকেই আমি ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট বলব। এরপর মিঠুনের সঙ্গে সাকিবের জুটিটাও বড় হতে পারত। সেটা হয়নি। আসলে ২৪৪ রান করে ওভালের এই উইকেটে লড়াই করাই কঠিন। আমাদের অনেক ব্যাটসম্যান সেট হয়েও বড় ইনিংস খেলতে পারেনি। ২৫-৩০ রান করে আউট হয়ে গেছে অনেকে। আপনি যখন সেট হয়ে যাবেন, তখন আপনার কাছে বড় ইনিংসই চাইবে। সেটা হয়নি।’

সেটা না হলেও বোলাররা দারুণ লড়াই করেছেন। মাশরাফি বিশ্বাস করেন,‘এত কম রান নিয়েও বোলাররা দারুণ লড়াই করেছে। এখন মনে হচ্ছে আর ২০টা রান বেশি হলে জিতেই যেতাম।’ আর এই লড়াই আত্মবিশ্বাসও যোগাচ্ছে মাশরাফিকে, ‘রান কম করেও কিন্তু আমরা হাল ছাড়িনি। কথাই ছিল, ইনিংস যাই হোক না কেন আমরা শেষ পর্যন্ত চেষ্টা করব। আমাদের আরও ম্যাচ আছে। সেখানে এরচেয়েও কম রান করতে পারি। তবু লড়াই ছাড়ব না। এই মানসিকতার কারণেই কিন্তু শেষদিকে ঘুরে দাঁড়াতে পেরেছিলাম। এটা এ ম্যাচের সবচেয়ে ইতিবাচক দিক।’

এ ইতিবাচকতা বিশ্বকাপের বাকি অংশে আরও শক্তি যোগানোর কথা বাংলাদেশ দলকে। প্রথম ম্যাচে ৩৩০ রান করে দলকে জিতিয়েছেন ব্যাটসম্যানরা। দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা প্রায় আড়ালই করে দিয়েছিলেন বোলাররা। এতে শনিবার কার্ডিফে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জোর লড়াই করার কথা বাংলাদেশের। কিন্তু অতীত বলছে বড় ব্যবধানে হারের চেয়ে তীরে এসে তরী ডোবার কষ্টে বেশি মুষড়ে পড়ে বাংলাদেশ দল। যদিও দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ কিউইদের কাছে হারের পর জানিয়েছেন, ‘বিশ্বকাপের মত আসরে টানা ম্যাচ জেতা কঠিন। এটা ঠিক যে সম্ভাবনা জাগিয়ে হারলে খারাপ লাগে। তবে ছেলেদের বলে দেওয়া হয়েছে কেউ যেন হতাশায় না ভোগে। টুর্নামেন্টের এখনো অনেকটা বাকি আছে, সুযোগও আসবে।’

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com