শুক্রবার  ৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ ইং  |  ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  |  ২৬শে রবিউস-সানি, ১৪৪৩ হিজরী

পুলিশের নির্যাতনে মৃত্যুর অভিযোগ, থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ

রংপুরের হারাগাছে পুলিশের নির্যাতনে তাজুল ইসলাম (৫০) নামে এক মাদকসেবীর মৃত্যুর অভিযোগে থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। এ সময় হারাগাছ থানা ভবনে ইটপাটকেল নিক্ষেপসহ পুলিশ ভ্যান ও মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।

সোমবার (১ নভেম্বর) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে রংপুর মেট্রোপলিটনের হারাগাছ থানা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত তাজুল ইসলাম রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছের দালালহাট নয়াটারী এলাকার মৃত শওকত আলীর ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার সন্ধ্যায় রংপুর মেট্রোপলিটনের হারাগাছ থানার পুলিশ নতুন বাজার বছির বানিয়ার তেপতি নামক স্থানে অভিযান চালায়। এ সময় মাদকসেবী তাজুল ইসলামকে আটক করে নির্যাতনের এক পর্যায়ে ঘটনাস্থলে তার মৃত্যু হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে হারাগাছ থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করে। এ সময় তাজুল হত্যার বিচার দাবি করে ইটপাটকেল নিক্ষেপসহ থানা ভবনে ভাঙচুর চালানো হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ টিয়ারসেল নিক্ষেপ করেছে। পরে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

আবুল হোসেন নামে একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, তাজুল ইসলামকে মিথ্যা মাদক সেবনের অভিযোগে আটক করে হাতকড়া পরানো হয়। এ সময় তার মাথার পেছনে জোরে আঘাতসহ শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

হারাগাছ থানার ওসি শওকত আলীর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

তবে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার আলতাব হোসেন জানান, পিটিয়ে হত্যার অভিযোগটি সত্য নয়। তারপরও নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্ত করলে প্রকৃত বিষয়টি জানা যাবে।

তিনি আরো বলেন, সন্ধ্যায় পুলিশ মাদকাসক্ত তাজুল ইসলামকে মাদকসহ আটক করে। এ সময় সে পালানোর চেষ্টা করলে ঘটনাস্থলেই হঠাৎ অসুস্থ হয়ে মারা যান। এ ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে থানা ঘেরাও করে ভাঙচুর করেছে এলাকাবাসী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com