বুধবার  ২৬শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং  |  ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  |  ২২শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪৩ হিজরী

পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ‘পালিয়ে’ যান ডা. মুরাদ!

মারধর ও হত্যার হুমকির অভিযোগ এনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন তার স্ত্রী ডা. জাহানারা এহসান। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে ধানমন্ডি থানায় সাধারণ ডায়েরিটি করেন তিনি। বিষয়টি কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া।

এর আগে, ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা চেয়েছেন ডা. জাহানারা এহসান। তাকে মারধর করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) ৯৯৯ থেকে বিষয়টি জানানো হয় ধানমন্ডি থানা পুলিশকে। এরপরই পুলিশের একটি টিম মুরাদের বাসায় যায়। বাসায় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডা. মুরাদ বাসা থেকে বের হয়ে যান বলে জিডিতে উল্লেখ করেছেন তার স্ত্রী।

ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকরাম আলী মিয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বেলা ৩টার দিকে ৯৯৯-এ ফোন করে ওই অভিযোগ করেন জাহানারা। এরপরই পুলিশের একটি টিম মুরাদের বাসায় যায়। ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহ থেকেই অভিযোগ করা হয়েছে।’

জানা যায়, এই ডাক্তার দম্পতি ১৯ বছর ধরে একত্রে আছেন। তাদের সংসারে দুই সন্তান। মেয়ে রামিসা ফারিহা রাজকন্যা (১৬) এবং ছেলে হাসান আবরার মাহির যুবরাজ (১১)।

জিডি সূত্রে জানা যায়, ডা. মুরাদ সাম্প্রতিক সময়ে কারণে-অকারণে স্ত্রীকে এবং সন্তানদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করাসহ শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছেন। এবং হত্যার হুমকিও দিচ্ছেন তিনি। গতকাল বেলা পৌনে ৩টার দিকে আগের ন্যায় স্ত্রী ও সন্তানদের গালিগালাজ করে এবং মারধর করাতে গেলে স্ত্রী ৯৯৯-এ কল দেন। পরে ধানমন্ডি থানা পুলিশ বাসায় পৌঁছালে ডা. মুরাদ বাসা থেকে বের হয়ে যান।

‘আমি নিরাপত্তাহীনতায় আছি। বিবাদী (ডা. মুরাদ) আমাকে এবং আমার সন্তানদের যেকোনো সময় ক্ষতিসাধন করতে পারে।’ বলে লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন স্ত্রী ডা. জাহানারা এহসান।

kalerkantho

জানতে চাইলে জিডির বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড জনসংযোগ বিভাগের উপকমিশনার ফারুক হোসেন বলেন, ‘চিকিৎক জাহানারা স্বামীর বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। তদন্ত করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জিডির বক্তব্য হুবহু নিচে তুলে ধরা হলো : ‘বিগত ১৯ বছর বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছি। বিবাহিত জীবনে আমাদের সংসারে এক মেয়ে রামিসা ফারিহা রাজকন্যা (১৬) এবং এক ছেলে হাসান আবরার মাহির যুবরাজ (১১)। বিবাদী আমার স্বামী। তিনি বর্তমান সরকারের সংসদ সদস্য এবং সাবেক প্রতিমন্ত্রী। সাম্প্রতিক সময়ে তিনি (ডা. মুরাদ) কারণে অকারণে আমাকে এবং সন্তানদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজসহ শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করিয়া আসিতেছে এবং হত্যার হুমকি প্রদান করিয়া আসিতেছে। আজ ( ০৬/০১/২০২২ তারিখ) সময় অনুমান পৌনে ৩টার দিকে পূর্বের ন্যায় আমাকে এবং আমার সন্তানদের গালিগালাজ করে এবং মারধর করার জন্য উদ্যত হইলে আমি ৯৯৯-এ কল করিলে ধানমন্ডি থানা পুলিশ বাসার ঠিকানায় পৌঁছালে বিবাদী বাসা হইতে বাহির হইয়া যায়। আমি এমতাবস্থায় নিরাপত্তাহীনতায় আছি। বিবাদী আমাকে এবং আমার সন্তানদের যে কোনো সময়ে ক্ষতি সাধন করিতে পারে।’

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com