মঙ্গলবার  ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং  |  ২রা আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ  |  ১৭ই মুহাররম, ১৪৪১ হিজরী

পহেলা বৈশাখ নিয়ে তারকাদের পরিকল্পনা

আসছে পহেলা বৈশাখ। এই দিনটি আসার অনেক আগে থেকেই
তারকারা যার যার মতো পরিকল্পনা করেন—দিনটি কিভাবে কোথায় উদযাপন করবেন। আবার অনেকেই কাজের ব্যস্ততার কারণে
কোনোরকম পরিকল্পনাই করতে পারেন না। তারকাদের বৈশাখী পরিকল্পনার কথা জানাচ্ছেন মিলান আফ্রিদী

সজল
গত বছর পহেলা বৈশাখে ঢাকাতেই ছিলাম। তবে যতদূর মনে পড়ে সেদিন কোনো শুটিং ছিল না, তাই বাসাতেই ছিলাম আমি। প্রচণ্ড গরম পড়েছিল। সারাদিন ঘুমিয়েই কাটিয়েছিলাম। তবে এবার তো কোনো পরিকল্পনাই করতে পারিনি। কারণ এবার পহেলা বৈশাখে আমার ঢাকায় থাকা হচ্ছে না। একটি নাটকের কাজে ১২ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত আমাকে নড়াইল থাকতে হবে। সেখানে নাটকের শুটিংয়ের মধ্যদিয়েই আমার পহেলা বৈশাখ কেটে যাবে। তবে ইচ্ছে আছে, পান্তা ভাত আর ইলিশ মাছ খাওয়ার। জানি না, নড়াইলে পাওয়া যাবে কি না। তবে ইউনিটকে বিশেষ অনুরোধ করব অন্তত কিছুটা সময় যেন বৈশাখী আমেজে কাটে সে ব্যবস্থা করতে।

বিদ্যা সিনহা সাহা মিম
এখন পর্যন্ত পহেলা বৈশাখ নিয়ে কোনোরকম পরিকল্পনা করিনি। কারণ শুটিং-ডাবিং আর ফটোশুট নিয়ে এতই ব্যস্ত সময় যাচ্ছে আমার যে পরিকল্পনা করার সময় পাচ্ছি না। তবে ইচ্ছে আছে, বাঙালির বিশেষ এই দিনটিকে ভালোভাবে উদযাপন করার। ঢাকার বাইরে কোথাও যাওয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই। কারণ কিছুদিন আগেই দেশের বাইরে থেকে ‘সুইটহার্ট’ ছবির শুটিং করে এলাম। এখন একটু বিশ্রাম নিতে পারলেই শান্তি পেতাম। এরমধ্যে প্রচণ্ড ঠাণ্ডাও লেগেছে আমার। কিন্তু কাজও করতে হচ্ছে। যাই হোক বাবা, মা এবং বোনকে নিয়ে এবারের পহেলা বৈশাখ যেন ভালোভাবে কেটে যায় সেই দোয়া চাই সবার কাছে।

মেহজাবিন চৌধুরী
আগের তুলনায় নাটকে কাজ করা একটু কমিয়ে দিয়েছি। শুধু ভালো ভালো গল্প এবং আমার মনের মতো চরিত্র পেলেই অভিনয় করছি। যেমন প্রায় দু সপ্তাহ আমার নতুন কোনো নাটকে কাজ করা নিয়ে ব্যস্ততা নেই। তবে স্টেজ শো এবং বিজ্ঞাপনের কাজসহ ফটোশুট করা নিয়ে ব্যস্ত সময় যাচ্ছে। বৈশাখ এলেই সাধারণত ফটোশুটের ব্যস্ততা বেড়ে যায়। কারণ বিভিন্ন হাউসগুলো বৈশাখে নিজেদের বাঙালিয়ানা ফুটিয়ে তুলতে চায়। এই মুহূর্তে ফটোশুট নিয়েই বেশি ব্যস্ত সময় যাচ্ছে। এবারের পহেলা বৈশাখ নিয়ে এখনো তেমন কোনো পরিকল্পনা না থাকলেও দিনটি দুটি ভাগে উদযাপন করার ইচ্ছে আছে। একটি ভাগে শুধু পরিবারকে সময় দেব। আর অন্য একটি ভাগে বন্ধু-বান্ধবদের সময় দেব।

ফারহানা মিলি
গতবছর পহেলা বৈশাখ ঢাকাতেই উদযাপন করেছিলাম। তবে এবার ইচ্ছে ছিল, গতবারের চেয়ে একটু বেশি বেশি ঘুরে বেড়াব। কারণ আমার একমাত্র ছেলে রুসলান এখন বড় হয়েছে। সে নিজেও বাইরে ঘুরে বেড়াতে চায়। তাই ইচ্ছে এবারের পহেলা বৈশাখে তাকে নিয়ে ঘুরে বেড়ানোর। কিন্তু সেই ইচ্ছে এবার আর পূরণ হচ্ছে না। ঈদের নাটকের শুটিংয়ে এবার আমাকে পহেলা বৈশাখের দিন ঢাকার বাইরে থাকতে হবে একটি প্রত্যন্ত অঞ্চলে। সেখানে নাটকের শুটিং শেষে ফিরব পহেলা বৈশাখের পরেরদিন। জানি না পরিচালক বা পুরো ইউনিটের বৈশাখের দিনটি উদযাপন করার কোনোরকম পরিকল্পনা আছে কি না। যদি পরিকল্পনা থাকে তাহলে ভালোই হয়। সবাইকে নতুন বাংলা সালের শুভেচ্ছা।

সাইমন সাদিক
গত বছর পহেলা বৈশাখ ঢাকাতে ছিলাম। শুটিং ছিল বিধায় কোনো আনন্দ করতে পারিনি বাঙালির বিশেষ এই দিনটিতে। তবে এবার ইচ্ছে আছে আমার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জ যাওয়ার। কারণ এখন যেসব সিনেমাতে কাজ করছি সেগুলোর কাজের বিরতি আছে বৈশাখে। তাই পহেলা বৈশাখের দিনটি বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে কাটাতে চাই। আর যদি কোনোভাবে বাড়িতে যাওয়া মিস হয়ে যায়, তাহলে পান্তা-ইলিশ খাবো রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ঘুরে ঘুরে। প্রিয় প্রিয় মানুষদের সঙ্গে সময় কাটাব। আসলে বাংলাদেশের বড় উত্সবের মধ্যে একটি পহেলা বৈশাখ। এই দিনটি আমি মনে করি সবারই মন থেকে উদযাপন করা উচিত।

নাঈম
পহেলা বৈশাখ নিয়ে কখনোই আমার কোনো পরিকল্পনা থাকে না। কারণ বছরের এই বিশেষ দিনটি সবসময়ই আমার ভালো কাটে। আবার দেখা গেছে, আমি কোনো কাজ পরিকল্পনা করে গুছিয়ে করতে পারি না। কারণ আমার সব কাজ তখন এলোমেলো হয়ে যায়। তাই আসছে পহেলা বৈশাখ নিয়ে আমার কোনো পরিকল্পনা নেই। তবে এবার পহেলা বৈশাখটি একটু ভালো কাটবে কারণ ওইদিন থেকেই আমার এবং মিমের যমুনা ফ্রিজের নতুন বিজ্ঞাপনটি প্রচারে আসবে। বাংলা নববর্ষের প্রথম দিনে নিজেকে নতুনরূপে দেখতে পাব—এটাও অন্যরকম ভালোলাগা। পহেলা বৈশাখে আমি সবসময়ই মা-বাবা-বোনের সঙ্গে কাটাই। যেন ঈদের দিনের মতো অনেক আনন্দে কাটে বিশেষ এই দিনটি। সবাইকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com