শুক্রবার  ২২শে অক্টোবর, ২০২১ ইং  |  ৬ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  |  ১৫ই রবিউল-আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরী

ড. কামালের নেতৃত্বে ভোটের মাঠে নামা ‘রাজনৈতিক ভুল’ ছিল

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে ভোটের মাঠে নামাকে ‘রাজনৈতিক ভুল’ বলে মনে করছেন বিএনপি নেতারা। ওই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে তারা বলছেন, এবার আন্দোলন বলেন কিংবা নির্বাচন, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বেই সব কিছু করতে হবে। ২০১৮ সালের মতো আর নেতা ‘হায়ার’ করা যাবে না। এ সময় অনেক নেতা প্রশ্ন করেন, কার বুদ্ধিত্বে ২০১৮ সালের নির্বাচনের আগে ড. কামাল হোসেনকে ‘হায়ার’ করা হয়েছিল?

রুদ্ধদ্বার বৈঠক সূত্রে জানা যায়, দলটির নেতারা বলেন, ‘আমাদের আগে সিদ্ধান্ত নিতে হবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে বিএনপি কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না। এরপর খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন গঠনের দাবিতে আন্দোলনে নামার সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এই দাবি আদায়ের বিষয়ে কোনো রকম ছাড় দেওয়া যাবে না। সর্বোচ্চ ঝুঁকি নিয়ে আন্দোলনে নামতে হবে। আমাদের আন্দোলনের বিকল্প নেই। এবারের আন্দোলনে কোনো রকম ব্যর্থ হওয়া যাবে না। পরিকল্পিতভাবে আন্দোলন করতে হবে। বিগত আন্দোলনে আমাদের কী কী ভুল ছিল তা চিহ্নিত করতে হবে। সেই ভুলগুলো এবার কোনো অবস্থায় করা যাবে না।’

আন্দোলন চলাকালে সব নেতার পাসপোর্ট স্থায়ী কমিটির নেতাদের কাছে জমা দিতে হবে। পরিকল্পিতভাবে আন্দোলন শুরু করতে হবে, কোনো অবস্থায় ব্যর্থ হওয়া যাবে না।’

এই বৈঠকের মূল মঞ্চে ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

দলের ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক কর্মকৌশল ঠিক করতে ধারাবাহিক বৈঠকের প্রথম দিন মঙ্গলবার দলের ভাইস চেয়ারম্যান ও দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টাদের মতামত নেওয়া হয়। সাড়ে ৪ ঘণ্টার ওই বৈঠকে ২৮ জন নেতা তাদের মতামত দেন।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com