রবিবার  ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং  |  ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  |  ১লা সফর, ১৪৪২ হিজরী

ডেমরার নিম্নাঞ্চলের মানুষের নৌকাই একমাত্র ভরসা

‘আমরা বন্যার পানিতে ভাসলেও আমাদের সরকারি ত্রাণ দেওয়ার কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছেন না কেউ’। কথাগুলো বললেন রাজধানী ঢাকার আমুলিয়া এলাকার সত্তর বছরের বৃদ্ধ আক্কাস আলী মিয়া। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা আমাদের খোঁজ-খবর পর্যন্ত নেননি।

গত কয়েকদিন ধরেই বালু নদের পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। আর বানের পানিতে তলিয়ে গেছে এ নদ তীরবর্তী নিম্নাঞ্চল, রাস্তা, ফসলের ক্ষেত ও বাড়ির আঙ্গিনা। নিম্নাঞ্চলের অধিকাংশ বাড়ি ঘরেও প্রবেশ করেছে পানি। উত্তর ও মধ্যাঞ্চলের পর এবার বন্যার পানির এ ঢলে প্লাবিত হয়েছে বালু নদ সংশ্লিষ্ট নিম্নাঞ্চলবাসীরা। ফলে বালু নদ তীরবর্তী মানুষের নিত্য দিনের ভোগান্তি বেড়েছে কয়েকগুণ। চরম দুর্ভোগে রয়েছেন অধিবাসীরা। আর সড়ক পথ পানির নিচে থাকায় নিম্নাঞ্চলের মানুষের এখন একমাত্র বাহন হয়েছে নৌকা।

সরেজমিনে এলাকাটি ঘুরে দেখা গেছে, ঢাকার ডেমরা থানাধীন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) ৭০ নম্বর ওয়ার্ডের নলছাটা, দুর্গাপুর, তাম্বুরাবাদ, ধিৎপুর, খলাপাড়া, ঠুলঠুলিয়া, আমুলিয়া-মেন্দিপুর এলাকার নিম্নাঞ্চগুলো বালু নদের পানিতে প্লাবিত হয়েছে। নলছাটার কিছু বাড়ি ঘরে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে। খিলগাঁও থানাধীন ডিএসসিসির ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডের বিচ্ছিন্ন এলাকাগুলোর মধ্যে ইদারকান্দি, ফকিরখালি, দাসেরকান্দি, গজাইরাপাড়া ও বাবুর জায়গা এলাকাগুলোর রাস্তাঘাট ও নিম্নাঞ্চলগুলো ভয়াভহভাবে প্লাবিত হয়েছে। ওয়ার্ডের নিম্নাঞ্চলের অন্তত ৩ কিলোমিটার রাস্তা তলিয়ে গেছে। কোথাও কোথাও কোমড় পরিমাণ পানি হয়েছে। এ ছাড়া ওয়ার্ডের ত্রিমোহনী, লায়নহাটি, নাগদারপাড়, নাসিরাবাদসহ অধিকাংশ এলাকার নিম্নাঞ্চল ও বাড়িঘর প্লাবিত হয়েছে। ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডটিতে অন্তত দেড় শতাধিক বাড়ি ঘরে প্রবেশ করেছে বানের পানি। এ ওয়ার্ডটির অভ্যন্তরীণ খালগুলো বালু নদের সংগে সড়াসড়ি সংযোগ। বিশেষ করে বালু নদ থেকে নড়াই নদী হয়ে অভ্যন্তরীণ সংযোগ খালের মাধ্যমে সহজেই ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডের নিম্নাঞ্চলে বানের পানি ছড়িয়ে পড়ে।

এলাকাবাসী জানায়, ডিএসসিসির ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণগাঁও, ভাইগদিয়া ও মানিকদিয়া খালের তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলগুলো তলিয়ে গেছে। ওই ওয়ার্ডের বেগুনবাড়ী এলাকা ও আশপাশের নিম্নাঞ্চলগুলো তলিয়ে গেছে। খাল তীরবর্তী অধিকাংশ বাড়িঘরেও প্রবেশ করেছে বানের পানি। এদিকে ডিএসসিসির ৭১ নম্বর ওয়ার্ডের মান্ডা, কদমতলী ঝিলপাড়া ও উত্তর মান্ডা এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

অভ্যন্তরীণ খালের মাধ্যমে বালু নদের পানি ওই এলাকায় ছড়িয়ে পড়েছে। আর খাল তীরবর্তী অধিকাংশ বাড়িতেই পানি প্রবেশ করেছে। এ ছাড়া ডিএসসিসির ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মুগদাপাড়া খাল এলাকার নিম্নাঞ্চলেও বন্যার পানি ছড়িয়ে পড়েছে।

এদিকে রাজধানীর সবুজবাগ, বাড্ডা, বেরাইদ, ডুমনি, সাতারকূল, দক্ষিণখান, টঙ্গী, গাজীপুর জেলার সদর উপজেলার পূর্বদিক ও দিয়ে কাপাশিয়া এবং কালিগঞ্জ উপজেলা এলাকার দিকে প্রবাহিত বালু নদের তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলগুলোও প্লাবিত হয়েছে। তাছাড়া বালু নদ তীরবর্তী নগরীর বিভিন্ন এলাকায় শাখা নদের সংযোগ ও ছোট বড় সংযোগ খালেও বানের পানি প্রবেশ করেছে। তাছাড়া ঢাকার পূর্বঞ্চলের বিস্তির্ণ জলাভূমির ওপর দিয়ে বানের পানি প্রবাহিত তলিয়ে গেছে ওইসব এলাকা।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, বন্যার প্লাবিত হলেও অধিবাসীরা সরকারি কোনো সহযোগিতা পাচ্ছেন না। নিম্নাঞ্চলগুলোতে মানুষের বর্জ্য ও বানের পানি মিশে একাকার হয়ে গেছে। চারদিকে ছড়িয়ে পড়েছে পানিবাহিত নানা রোগবালাই। তবে নিয়ন্ত্রণহীন পানি বৃদ্ধির পরিস্থিতি বজায় থাকলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ রূপ নেবে। নিম্নাঞ্চলগুলোতে শুধু নৌকায় চলাচল করতে হচ্ছে। এলাকার গরু বাছুর ও হাঁস মুরগি নিয়ে উচু অঞ্চলে আশ্রয় নিতে হচ্ছে।

এ বিষয়ে ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডের এক বাসিন্দা সোহরাব হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, বন্যার সময় প্রায় প্রতিবছরই আমাদের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়ে বন্যার পানি ঘর বাড়িতে উঠে। আমরা চরম ক্ষতিগ্রস্ত হই। এতে কেউ আমাদের পাশে সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়ায় না। আমরা চরম অবহেলায় ও মানবেতর জীবন যাপন করছি।

এ বিষয়ে ৭০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আতিকুর রহমান আতিক কালের কণ্ঠকে বলেন, করোনাভাইরাস কাটতে না কাটতেই অবিরাম বন্যায় সাধারণ মানুষ দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। এতে কর্মহীন হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। অনেকের কষ্ট দেখে ব্যক্তিগত উদ্যোগে তাদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছি। সরকারি অনুদান পেলে বন্যাদুর্গত লোকদের তালিকা করে তাদের বাড়িতে ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হবে। তিনি বলেন, আকষ্কিক বন্যার পানিতে রাস্তা ঘাট ঢুবে গিয়ে রাস্তা অনেক স্থানে ভেঙে গেছে। মানুষ চলাচলের জন্য সেই রাস্তাগুলো মেরামত করে যান চলাচলের উপযুক্ত করা হয়েছে। তিনি সরকারের সর্বোচ্চ মহলে বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com