রবিবার  ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং  |  ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  |  ১লা সফর, ১৪৪২ হিজরী

চমেকে চলছে অনির্দষ্টকালের কর্মবিরতি

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি চলছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে দুই ইন্টার্ন চিকিৎসকের উপর হামলার ঘটনার পরপরই ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতি শুরু হয়। এদিকে আজ শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে অবস্থান কর্মসূচি শুরু হয়ে বেলা একটা পর্যন্ত চলে। সেই সঙ্গে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের কর্মবিরতিতে বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসাসেবা ব্যাহত হচ্ছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

চমেক হাসপাতাল ইন্টার্ন চিকিৎসক অ্যাসোসিয়েশনের (আইডিএ) যুগ্ম আহবায়ক ও কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি ডা. এম এ আউয়াল বিকেলে কালের কণ্ঠকে বলেন, গত বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রধান ছাত্রবাসে আমাদের কয়েকজন ইন্টার্ন চিকিৎসকের উপর হামলা হলে চকবাজার থানায় অভিযোগ দিতে যান আইডিএ আহবায়ক ওসমান গণি ও ছাত্র সংসদের সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক সানি প্রান্তিক। পরে তাঁদেরকে আবার থানা থেকে ফোন করা হলে সেখানে যাওয়ার পথে চকবাজার গুলজার এলাকায় ওই দুইজনের উপর হামলা হয়। এর প্রতিবাদে গত বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে আমাদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি শুরু হয়।

তিনি বলেন, ডা. ওসমানের মাথায় ৫টি এবং প্রান্তিকের মাথায় ৮টি সেলাই হয়েছে। তাঁদের অবস্থা খারাপ। হাসপাতালের নিউসার্জারী ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন। আমরা কর্মস্থলে ফিরে যেতে চাই। কিন্তু উপযুক্ত পরিবেশ না থাকলে কিভাবে আমরা কাজ করবো।

অভিযোগ ওঠেছে, চমেক ছাত্রলীগের দুইপক্ষের মধ্যে গত কিছুদিন ধরে কয়েক দফায় সংঘাত হয়েছে। এসব ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। এ অবস্থায় গত বৃহস্পতিবার বিকেলে কলেজের প্রধান ছাত্রাবাসের ক্যান্টিনে হাতাহাতি হয়েছে। এ ঘটনার পর ওই রাতে দুই ইন্টার্ন চিকিৎসকের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। আহত দুইজন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

আইডিএ ও কলেজ ছাত্র সংসদের নেতাদের অভিযোগ, গত বৃহস্পতিবার রাতে চকবাজার গুলজার এলাকায় ওই দুই ইন্টার্ন চিকিৎসকের হামলার ঘটনায় নেতৃত্ব দিয়েছেন অভিজিৎ দাশ নামে কলেজ ছাত্রলীগের এক নেতা। এ অংশটি শিক্ষা উপমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য ব্যরিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

এদিকে চমেক হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতির মধ্যে আজ শুক্রবার সন্ধ্যায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বৈঠকে বসবেন বলে জানা গেছে।

গতকাল হাসপাতালের মোজাম্মেল চত্বরে অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে আইডিএ নেতারা দুই চিকিৎসকের উপর হামলার ঘটনায় জরিতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়। তবে আইডিএ নেতারা জানান, হাসপাতালে তাঁরা কর্মবিরতি পালন করলেও সিনিয়র চিকিৎসকরা রয়েছেন। তাঁদের দাবি মানা হলে কর্মবিরতি প্রত্যাহার করে নেবেন। অবস্থান কর্মসূচি বেলা ১টায় শেষ করলেও কর্মবিরতি অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে ইন্টার্ণ চিকিৎসকের কর্মবিরতিতে যাতে চিকিৎসাসেবায় প্রভাব না পড়ে সে জন্য হাসপাতালের ওয়ার্ডগুলোতে অন্যান্য চিকিৎসক বাড়ানো হয়েছে বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। উল্লেখ্য, হাসপাতালে প্রায় দুইশ ইন্টার্ণ চিকিৎসক রয়েছেন

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com