সোমবার  ৩রা আগস্ট, ২০২০ ইং  |  ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ  |  ১২ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

কী কারণে সেনা সরালো চীন?

ভারত-চীন সীমান্তে উত্তেজনা কমিয়ে বিতর্কিত গালওয়ান এলাকা থেকে পিছু হটেছে দুই দেশের সেনাবাহিনী। ওই এলাকা থেকে চীন তাদের অস্থায়ী সেনা ছাউনি ও কিছু অস্থায়ী কাঠামোও সরিয়ে নিয়ে গেছে। তবে যে প্রশ্নটি সকলের মনেই হয়তো ঘুরছে তা হলো, ভারতের চাপেই কি চীনা সেনা পিছু হটেছে? নাকি এই ভরা বর্ষার মৌসুমে গালওয়ান নদীর প্রতিকূল পরিস্থিতিই তাদের পিছু হটতে বাধ্য করেছে?

সোমবার ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সীমান্তে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর সেনা সরানো নিয়ে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রী ওয়াং ইয়ের সঙ্গে আলোচনা করেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। এরপর থেকে সেনা সরতে থাকে।

অনেকেই বলছেন ভারতের চাপে নয়; বরং গালওয়ান নদীর কাছে পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৪ থেকে পিছু হটার কারণ ওই নদীতে ক্রমাগত পানিস্তর বৃদ্ধি হওয়া। কারণ চীনের সেনাবাহিনী সেখান থেকে পিছিয়ে না গেলে তারা বন্যার কবলে পড়বে। তাই চীন ভারতের চাপের কাছে নতিস্বীকার করে পিছু হটেছে একথা বিশ্বাস করা কঠিন হচ্ছে অনেকের কাছেই।

তবে গালওয়ান নিয়ে এখন আর তেমন বিতর্ক নেই। সব বিতর্ক এখন প্যাংগং হ্রদ ঘিরেই। ভারতীয় সেনা কি পারবে ঠিক আগের মতোই ফিঙ্গার ৮ চিহ্নিত অঞ্চলে টহল দিতে? বর্তমানে কিন্তু চীনের সামরিক বাহিনী ভারতের সেনাকে ফিঙ্গার ৪ চিহ্নিত অঞ্চলের বাইরে যেতে দেয় না।

ভারতীয় সেনাকে ওই এলাকায় টহল দেওয়া থেকে আটকাতে ফিঙ্গার ৪ থেকে ফিঙ্গার ৮ এর মধ্যে পঞ্চাশটি বাংকারও তৈরি করেছে চীন। সুতরাং প্রশ্ন উঠেছে, এই পরিস্থিতিতে কিভাবে চীনকে বিশ্বাস করা যায়? সত্যিই কী চীনারা লাদাখের গালওয়ান, হট স্প্রিং এবং গোগড়া থেকে পিছু হটছে?

সূত্র: এনডিটিভি।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com