শিরোনাম
সোমবার  ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং  |  ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  |  ১৯শে সফর, ১৪৪৩ হিজরী

অপু ভাই ওয়েব সিরিজের গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে, পরিচালকের ওপর ক্ষিপ্ত নেটিজেনরা

অপু ভাইকে মনে আছে? সোশ্যাল মিডিয়া লাইকিতে রঙিন চুলে ছোট ভিডিও করে বেশ পরিচিতি লাভ করেন ‘অপু ভাই’। এই মাধ্যমে তাকে অনুসরণ করেন প্রায় ১০ লাখ অনুসারী। রাস্তায় মারামারি করে গিয়েছিলেন হাজতেও। কয়েক দিন আগে তাকে একটি ওয়েব ফিল্মে নিয়ে আসেন আদনান আল রাজীব। এবার তাকে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে নিয়ে আসছেন নির্মাতা অনন্য মামুন।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অপু ভাইয়ের একটি ছবি পোস্ট করে নির্মাতা লিখেছেন, ‘কে কিভাবে নেবেন আমি জানি না, তবে মানুষের চেষ্টাকে আমি সম্মান করি। যার চেষ্টা আছে আমি তাকে সাহায্য করি। সিনিয়র বনাম জুনিয়র ওয়েব সিরিজে আপনাদের সামনে অপু ভাই আসবে আলিয়ান হয়ে (চরিত্রের নাম)। এক মাস অভিনয়ের প্রশিক্ষণ নিয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াবে অপু।’

এর পরেই দেশের সোশ্যাল মিডিয়া অনেকটাই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। অনন্য মামুনের বক্তব্যে খেপেছেন থিয়েটারকর্মী ও সাধারণ সিনেমাপ্রেমীরা। অনন্য মামুনকে উদ্দেশ করে রিয়া নামের একজন বলেছেন, ‘খুবই ভালো কাজ করছেন।পচে যাওয়া ইন্ডাস্ট্রিতে পচা মালের সরবরাহ বাড়াচ্ছেন। এদিকে আসল মেধাবীরা সারা জীবন স্ট্রাগল করে যাবে এসব ছাগলের জন্য।’

বিভিন্ন চলচ্চিত্র ও নাটকের ফেসবুক গ্রুপগুলোতে ব্যাপক সমালোচনা চলছে। বিশেষ করে থিয়েটারকর্মীরা, যারা অভিনয়কে ক্যারিয়ার করতে চান, তারা অনন্য মামুনের এই উদ্যোগের বেশ সমালোচনা করেছেন।

তরুণ অভিনয়শিল্পী তানজিল বলেছেন, ‘থিয়েটার করা অসংখ্য ছেলে-মেয়ে আছে, যারা অভিনয়টা ধারণ করে। যারা কাজটা বোঝে এবং ভালোবাসে। কিন্তু তাদেরকে কেউ সুযোগ দেয় না। সুযোগ দিলেও এমন ক্যারেক্টার দেওয়া হয়, যা হয়তো কারোর চোখেই পড়ে না। আমি আপনার দোষ দেব না, কেননা ফলোয়ার দেখে কাজ করার ট্রেন্ড অন্য অনেক পরিচালক অনেক আগেই নিয়ে এসেছে দেশে।শুভ কামনা রইলো আপনার নতুন প্রজেক্টের জন্য।’

ফিল্ম ম্যানিয়া নামের একটি সিনে প্রতিষ্ঠানের সিরাজুল ইসলাম নিরব নামের একজন বলেছেন, ‘ভাই, যদিও এটা নিতান্তই আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার; যদি দর্শকদের উদ্দেশে কিছু বানাতে চান, তাহলে মোটেও সমর্থন করতে পারলাম না। অসংখ্য ট্যালেন্টেড আর্টিস্ট পড়ে আছে আমাদের চারপাশে, যারা লম্বা সময় ধরে থিয়েটার করে যাচ্ছে। এতে এদের অবমূল্যায়ন ও নিরুৎসাহিত করা হবে। আমার মতে যারা মিনিমাম স্ট্যান্ডার্ড স্কেলটা মেইনটেন করে তারা হয়তো টিকটক বা লাইকি এগুলোকে থার্ডক্লাস গেটওয়ে ছাড়া অন্য কিছু ভাবে না, আর যদি যোগ্যতার কথা বলেন, তবে আমি বলব ওদের মাঝে এমন কিছু দেখিনি এখনো, কারণ কাজ করতে গিয়ে অনেক তারকাকেও অডিশনের ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন নির্মাণ থেকে বাদ দিতে হয়েছে। অনুরোধ রাখব, যারা শিল্পী তাঁদের প্রতিভাকে বিকশিত করবেন, শুভ কামনা আপনার জন্য।

রাহাত নামের একজন বলেছেন, আপনাদের মতো মানুষদের জন্যই এদের তৈরি হয়। অপকর্ম করে সিনেমায় চান্স পেলে সবাই ওটাই করবে। বাকিদের আরো উৎসাহ জোগালেন মামুন সাহেব। লজ্জা! ধর্ষণ করে ভাইরাল হলেও আপনাদের ব্যবসার জন্য তাকেও কাস্টিং দেবেন আপনারা।

মামুনের এই বক্তব্যকে নাকচ করে শাহরিয়ার শুভ নামের একজন লিখেছেন, ‘ওর চেষ্টা আপনাকে মুগ্ধ করেনি ভাই। থিয়েটারে এর থেকে কয়েক গুণ পরিশ্রমী ছেলেপুলে পাবেন আপনি। আপনি শুধু নিজের ভিউজের জন্য ওর হাইপটা নিতে চাচ্ছেন। অবশ্য এদের তৈরি করার জন্য আপনারা-আমরাই দায়ী। দেখা যাবে কেউ ধর্ষণ করলেও নিজের ভিউজের জন্য আপনারা এদের কাষ্ট করবেন।’

জোবায়ের রহমান নামের একজন উদীয়মান শিল্পী বলছেন, ‘অডিশন দেওয়ার ইচ্ছা ছিল। এটা দেখার পর ইচ্ছা মরে গেছে। বছরের পর বছর থিয়েটার করে একজন থিয়েটারকর্মী কি পেল অনন্য মামুন সাহেব? এক মাসেই অভিনয় শিখিয়ে ফেলবেন? আপনিও স্রোতে গা ভাসিয়ে দিলেন? ছি!’

উদীয়মান শিল্পী হিসেবে পরিচয় দেওয়া দেবজ্যোতি নামের একজন লিখেছেন, ‘আপনার অনেক বড় একটা ধন্যবাদ পাওয়া উচিত। একদিকে পাঁচ বছর থিয়েটার করেও টিভি-সিনেমায় একটা মিনিমাম স্ক্রিনটাইমিং থাকা রোল পাওয়ার জন্য জায়গায় জায়গায় ঘোরা লাগে আমাদের, এখন মনে হয়, মানুষের পায়ে ধরা বাকি আছে যে ভাই একটা সুযোগ দেন, একটু সময় দেন আমার পেছনে, তাহলে অনেক ভালো কিছু করে দেখাব আর অন্যদিকে টিকটক থেকে এসে এক মাসের ট্রেনিং দিয়ে ওয়েবসিরিজে কাস্ট, হিংসা করতে চাই না কাউকে, হিংসা কোনো ভালো কিছু না। কিন্তু মাঝে মাঝে হিংসা করতে বাধ্য হই। আফসোস হচ্ছে, এত বছর থিয়েটার না করে টিকটক করলেও পারতাম। টিকটক করে টাকাও আসত, আপনারা রোলও দিতেন। হ্যাঁ, অভিনেতা হতে থিয়েটার করাই লাগে এটা মাস্ট না, কিন্তু হুমায়ুন ফরীদি স্যার বলেছিলেন যে মিনিমাম একটা প্রস্তুতি নেওয়া লাগে। আফসোস এখানেই যে প্রস্তুতির চেয়ে লোকচক্ষুর সামনে থাকাটা জরুরি। কারণ প্রস্তুতি তো আপনারা এক-দেড় মাসেই দেওয়ায়ে দেন।’

সুদীপ্ত বসাক অর্ণব নামের একজন লিখেছেন, ‘পেন্ডামিকের এই সময়ে, প্রচুর নাট্যকর্মী, থিয়েটারকর্মীর অর্থকষ্টে দিন কাটছে। মেধা আছে, কিন্তু কাজ নেই, এমন আর্টিস্টের সংখ্যা অসংখ্য। এই আপনারাই যদি ভিউয়ের কাছে বিক্রি হয়ে এসব লোকজনকে নিয়ে আসেন টিআরপির আশায়, তাহলে বলব, নাটক-সিনেমা বানানোর দরকার নেই। পর্ন কিছু বানান।’

অবশ্য কেউ কেউ অপু ভাইকে এ পর্যায়ে নিয়ে আসার জন্য অনন্য মামুনকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন। সিমি নামের একজন বলেছেন, ‘একটা মানুষকে খারাপ কাজ থেকে ফিরিয়ে আনার জন্য, ভালো কাজের সুযোগ দেওয়া উচিত। ধন্যবাদ ভাইয়া।’

অনন্য মামুনের সিরিজটিতে অপু ভাইয়ের চরিত্রের নাম আলিয়ান। আগামী ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ‘সিনিয়র ভার্সেস জুনিয়র’-এর শুটিং শুরু হতে যাচ্ছে। এতে একঝাঁক নতুন শিল্পীকে দেখা যাবে। উল্লেখ্য, এর আগে একটি ওটিটি প্ল্যাটফর্মের জন্য নির্মিত আদনান আল রাজীবের ‘ইউটিউবার’-এ এক ঝলক দেখা গিয়েছিল অপু ভাইকে।

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com